জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে এক বাবার ফোন কলে তাঁর শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে দিনাজপুরের কোতোয়ালি থানা-পুলিশ।

গ্রেপ্তার আসামির নাম রাব্বিকুল ইসলাম নয়ন (২০)। তিনি দিনাজপুরের কোতোয়ালি থানার বড়াইপুর গ্রামের বাসিন্দা। আসামি ভুক্তভোগী শিশুর চাচাতো ভাই।

জাতীয় জরুরি সেবার জনসংযোগ বিভাগের মুখপাত্র পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

সেখানে বলা হয়, গতকাল রোববার (৩ অক্টোবর) বিকেলে ৯৯৯-এ একটি কল আসে। তা গ্রহণ করেন কনস্টেবল বেলাল হোসেন।

একজন কলার দিনাজপুরের কোতোয়ালি থানাধীন বড়াইপুর থেকে ফোন করে জানান, নয় বছর বয়সী দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী তাঁর শিশুকন্যা এক নিকটাত্মীয়ের মাধ্যমে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তিনি ৯৯৯-এর কাছে জরুরি আইনি সহায়তার অনুরোধ জানান।

৯৯৯ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি কোতোয়ালি থানায় জানিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। সংবাদ পেয়ে কোতোয়ালি থানা পুলিশের একটি দল দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ৯৯৯ পুলিশ ডিসপাচার এএসআই আল মামুন সংশ্লিষ্ট থানা-পুলিশ এবং কলারের সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশি অভিযানের আপডেট নিতে শুরু করেন।

পরে কোতোয়ালি থানার এসআই মো. জসীম ৯৯৯-কে ফোনে জানান, তাঁরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভুক্তভোগী শিশুর সঙ্গে কথা বলে ধর্ষণের সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছেন। এরপর অভিযুক্ত নয়নকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন।

এ সংক্রান্তে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করা হয়েছে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে