পুলিশের অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিটের অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ইমরান হোসেন। ছবি: বাংলাদেশ পুলিশ

নীলফামারীতে পুলিশের অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিট (এটিইউ) অভিযান চালিয়ে ৯১ হাজার ৮৫টি ইয়াবা বড়ি ও একটি গাড়িসহ এক মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে। নীলফামারী সদর থানার বড় বাজার ট্রাফিক মোড় এলাকা থেকে ২৪ ডিসেম্বর রাতে ওই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত মাদক কারবারির নাম ইমরান হোসেন (৪২)। তিনি সিলেটের গোলাপগঞ্জ থানার বাসিন্দা।

এই গাড়ি থেকেই জব্দ করা হয় ইয়াবার চালান। ছবি: বাংলাদেশ পুলিশ

পুলিশের অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিটের পুলিশ সুপার (মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস) মোহাম্মদ আসলাম খান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিভিন্ন জেলায় গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহকালে অ্যান্টি টেররিজম ইউনিটের একটি দল নিজস্ব গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ২৪ ডিসেম্বর রাত সাড়ে নয়টার দিকে নীলফামারী সদর থানার বড় বাজার ট্রাফিক মোড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে একটি টয়োটা জিপ গাড়ির সিলিন্ডার থেকে অভিনব কায়দায় পাচারকালে ৯১ হাজার ৮৫টি ইয়াবাবড়িসহ ইমরানকে গ্রেপ্তার করে।
জব্দকৃত ইয়াবার চালান। ছবি: বাংলাদেশ পুলিশ

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গ্রেফতারকৃত ইমরান হোসেন ২১ ডিসেম্বর কক্সবাজারের টেকনাফ থানার সাবরাং এলাকার জুবায়ের জুয়েলের (৩০) কাছ থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করেন। নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা হয়ে নীলফামারী জেলাসহ উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় জুয়েলের ইয়াবা পাচারের বিস্তৃত নেটওয়ার্ক রয়েছে। বগুড়া সদর থানার ফুলবাড়ি এলাকার মো. বিপুল (৩৬) ও নীলফামারী সদর থানার সুজনসহ (৩৫) একটি চক্র বগুড়াসহ দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোয় ইয়াবা পাচারের সঙ্গে যুক্ত। জুয়েল, বিপুল ও সুজনের বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলাও রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত ইমরান ইয়াবার চালান কক্সবাজারের জুয়েলের কাছ থেকে নিয়ে বিপুল ও সুজনকে সরবরাহ করত। এবারের চালানটি নিয়ে তিনি ২৪ ডিসেম্বর কক্সবাজার থেকে রওনা হন। গ্রেপ্তারের পর ইমরান ও তাঁর সহযোগীদের বিরুদ্ধে নীলফামারী সদর থানায় মাদক মামলা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে